You are here
Home > Suggesation >

ব্যাংকে চাকরি পাওয়ার পরিপূর্ণ টিউটোরিয়াল

 

 

ব্যাংকে চাকরি পাওয়ার পরিপূর্ণ টিউটোরিয়াল

এবার বিষয়গুলো নিয়ে বলছিঃ

 

কম্পিউটার/আইটিঃ

 অবশ্যই আগের সকল ব্যাংক (প্রাইভেট ব্যাংক সহ) প্রশ্নে আইটি থেকে যা এসেছে পড়ে ফেলুন।

 বাজারের যে কোন গাইড, সেটা Easy Computer বা এরকম কোনটা হতে পারে।

 

সাধারণ জ্ঞানঃ

 সাধারণ জ্ঞানের জন্য আপনি যেটা পড়েছেন সেটাতেই হবে। নতুন কিছু কেনার দরকার নেই। যদি এমন কেউ থাকেন, যিনি কোনদিন কোন সাধারণ জ্ঞান বই কিনেননি, তিনি ব্যাংক জবের সাধারণ জ্ঞানের জন্য বিসিএস প্রিলি ডাইজেস্ট বা যে কোন জব সলিউশান দেখতে পারেন। যারা বিসিএসের সাথে প্রিপারেশান নিচ্ছেন, তাদের জন্য বিসিএস গাইডই যথেষ্ট।

 

বাংলাঃ

ব্যাকরণ :  ৯ম শ্রেণীর বোর্ড ব্যাকরণ বই। ব্যাংক জবে ব্যাকরণ থেকে বেশি প্রশ্ন হয়

 

 ব্যাংক জবে ম্যাথের জন্য সময় ভীষণ ভাইটাল। তাড়াতাড়ি করার অভ্যাস করতে হবে। মুখে মুখে হিসেব করে অল্প জায়গায় শেষ এক/দুই লাইন লিখে ম্যাথ করার অভ্যাস করুন। এটা চাইলেই সম্ভব। আর ব্যাংকের প্রিপারেশানের জন্য এটা করতেই হবে।

 আগেই বলেছি আগের বছরের প্রশ্নের মত ম্যাথ করুন। বাজারের যে কোন একটা চাকরীর ম্যাথ গাইড সলভ করুন – সেটা এমবিএ এডমিশান গাইডও হতে পারে। এখান থেকে জ্যামিতির কিছু ম্যাথ অবশ্যই দেখবেন।

 

 

 

 

 

 

ইংরেজিঃ

গ্রামারঃ  গ্রামারের জন্য যে কোন ইন্টার মিডিয়েট লেভেলের গ্রামার বইয়েই চলবে। আগে যে বই পড়েছেন সেটিই পড়ুন। আগে যারা P. C. Das, বা Wren & Martin English Grammar এরকম গ্রামার পড়েছেন, তাঁরা অবশ্যই এগুলোই পড়বেন। আর আগে যারা এগুলো পড়েননি, অন্য যেটা পড়েছেন, সেটাই থাকুক। সেটা  এই গ্রামার বই আপনাকে বেসিক নিয়ম শিখাবে, তাতেই গ্রামারের ৭০% কাজ হয়ে যায়“common mistakes in English ” বইটাও ছোটর মধ্যে ভালোই।

 

 

 

 

ভোকাবিউলারিঃ

 ব্যাংক জব পরীক্ষায় ভোকাবিউলারি থেকে অনেকগুলো প্রশ্ন আসে। বাজারের যে কোন ভোকাবিউলারি বইতেই চলবে। অবশ্যই আগের ব্যাংক জব পরীক্ষার প্রশ্ন প্রথমে সলভ করবেন। # আর যারা সময় নিয়ে ভোকাবিউলারি পড়তে চান, তাঁরা Word Smart (I &II) পড়তে পারেন।

 

 

 

 

Leave a Reply

Top